Breaking

অনলাইন থেকে আয় করুন ঘরে বসে

বর্তমানে অনলাইন টাকা উপার্জন এর বিশাল একটা মাধ্যম।ইন্টারনেট ব্যবহার করে সহজে আপনি পেতে পারেন বিশাল অংকের মূল্য।

 অনলাইন টাকা উপার্জন
তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার কোনো না কোনো দিকে দক্ষতা থাকতে হবে।দক্ষতা ও পরিশ্রমের সমন্বয়ে ইন্টারনেট জগত আপনার উপার্জনে মূখ্য ভূমিকা রাখতে পারে।আর আপনার সফল হওয়ার গল্প তৈরিতে মূল দায়িত্ব আপনার।আমাদের দিকনির্দেশনা এবং কিছু টিপস আপনাকে সাহায্য করবে আপনার গন্তব্যে পৌছাতে।

চলুন শুরু করিপ্রথমপর্ব।আজ থাকছে অসাধারন পাঁচটি উপায়।
প্রথমেই আলোচনা করব আপনি কোন কাজ করবেন?
অনলাইন এমন একটা মাধ্যম খুব সহজ থেকে খুব কঠিন সব ধরনের কাজ ই আছে।আপনাকে ঠিক করে নিতে হবে আপনি কোন কাজে কতটুকু সময় দিতে পারবেন এবং কতটুকু ভালো করতে পারবেন।যে কাজকে আপনি ভালোবেসে করতে পারবেন।অনেক সময় নিয়ে করলেও বিরক্তি আসবে না এমন কোন কাজ পছন্দ করতে বলব আমি।এতে করে আপনার ভালো করার সম্ভাবনা বেশী থাকবে।প্রথম দিকে টাকা না আসলেও হতাশ হবেন না।
যেধরনের কাজগুলো করতে পারেন তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু তুলে ধরার চেষ্টা করলাম।

ডেটাএন্ট্রিঃ
অনলাইন মাধ্যমে সবচেয়ে সহজ কাজগুলোর অন্যতম একটি হলো ডেটা এন্ট্রির কাজ।এক্ষেত্রে মাইক্রোসফট অফিস প্রোগ্রামের (ওয়ার্ড,এক্সেল) কাজগুলো সবচেয়ে বেশি।এছাড়া শুধু কপি পেস্ট করার মাধ্যমে ও আপনি পেয়ে যেতে পারেন বিপুল অর্থ।তবে এই কাজগুলোতে কষ্টের তুলনায় টাকার পরিমান কম।যেকোনো ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট এ প্রোফাইল দাড় করাতে পারলে অনেক কাজ পাওয়া যায়।কিন্তু অটোমেশন এর কারনে বর্তমানে কাজের পরিমান কমে এসেছে।

পিটিসিঃ
পিটিসি মানে হলো পেইড টু ক্লিক।কিছু ওয়েবসাইট আছে শুধুমাত্র এড দেখিয়ে টাকা প্রদান করে।কিছু নির্দিষ্ট পরিমান এড দেয়া হয় এবং প্রতি এড দেখার সাথে সাথে কিছু সেন্ট একাউন্টে যোগ হয়। (১০০০ সেন্ট=১ ডলার)এধরনের কাজগুলো অনেক আগে থেকেই চলমান।তবে এক্ষেত্রে অনেক ভুয়া সাইট আছে।কিছু কিছু সাইট ভালোই টাকা প্রদান করে।যেমনঃনিওবাক্স,পেঈড টু ক্লিক।পিটিসি সাইটে টাকার পরিমান খুব ই কম।তবে রেফারেন্স বাড়িয়ে ভালো ইনকাম করে নিতে পারেন।

কন্টেন্ট বা আর্টিকেল লিখাঃ
টাকা আয় করার অসাধারন একটি পদ্ধতি এটি।আধুনিক  যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বাড়ছে অনলাইন পত্রিকা বা হাজারো ব্লগ সাইট কিংবা বহু ই-কমার্স সাইট।যেগুলোতে ক্রেতা আকৃষ্ট করার জন্য নানা ধরনের কন্টেন্ট এবং আইডিয়া প্রয়োজন হয়।আপনি আর্টিকেল গুলো সরবরাহ করে বা ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লিখে আয় করে নিতে পারেন অনেক টাকা।এস ই ও এর জন্য ও আর্টিকেল রাইটার এর প্রয়োজন পড়ে যাতে করে টার্গেটেড মানুষের কাছে বিজ্ঞাপন গিয়ে পৌছায়।তাই গুছিয়ে লিখতে পারার অভিজ্ঞতাও আপনাকে অনলাইন থেকে টাকা এনে দিতে পারে।
ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বা ওয়েব ডিজাইনঃ
প্রথমেই মনে রাখতে হবে ডেভেলপমেন্ট এবং ডিজাইন একই জিনিস নয়।ডিজাইন হল ওয়েবপেইজ এ শুধুমাত্র ভিজুয়াল গ্রাফিক্স করে দেয়া।আর ডেভেলপমেন্ট মানে একটি ওয়েবসাইট কে শুন্য থেকে পরিপূর্নতা প্রদান করা।অর্থাৎ ওয়েবসাইট হোস্টিং করা,সার্চ ইঞ্জিনে যুক্ত সবকিছু ও এর আওতায় থাকবে।
যুগের সাথে তাল মিলিয়ে প্রায় আধুনিক সকল প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকে।সেগুলো ডিজাইন করা কিংবা মেইন্টেইন করার জন্য দক্ষ লোকের প্রয়োজন হয়।এক্ষেত্রে আপনাকে অনেক কিছুই শিখে নিতে হবে।বিশেষ করে এইচ টি এম এল,সিএসএস, পি এইচ পি,জাভাস্ক্রিপ্ট ইত্যাদি ভাষা অবশ্যই জানতে হবে।আর আপনার আইডিয়া যত ভালো এবং সৃজনশীল হবে আপনি তত ভালো কাজ করতে পারবেন।টাকার পরিমান ও বেশী।তাই এটা খুবই ভালো একটা পদ্ধতি।

গ্রাফিক্স ডিজাইনঃ
গ্রাফিক্স ডিজাইন অন্যতম সেরা একটি পদ্ধতি টাকা আয় করার।ধৈর্য,দক্ষতা,সৃজনশীলতা সব কিছু সর্বোচ্চ পরিমানে দিয়ে এই কাজ করলে প্রচুর টাকা আয় করা যায়।বিভিন্ন লোগো তৈরি করা,ব্যানার করা,ফটো ইডিট,নকশা তৈরি,বিজনেস কার্ড তৈরি ইত্যাদির অসংখ্য কাজ অনালাইন মার্কেটপ্লেসে আছে।আর টাকার পরিমান খুব্ই ভালো।ভালো কাজ করলে ক্লায়েন্টের পারমানেন্ট ওয়ার্কার হিসেবেও কাজ পেয়ে যেতে পারেন।এক্ষেত্রে অভিজ্ঞরা কাজ বেশী পায়।তাই ধৈর্য ধরে প্রোফাইল তৈরি করুন এবং লেগে থাকুন।
চেষ্টা করেছি আপনাদের অনলাইন মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে কিছু আইডিয়া দিতে।পরের পর্বে থাকবে আরো কিছু টাকা আয় করার অসাধারন পদ্ধতি এবং অনলাইন মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে নানা তথ্য।সাথেই থাকুন।ধন্যবাদ।